ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর নাম - Name of calcium tablets
calcium tablets

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর নাম ও দাম -Name and price of calcium tablets

মানবদেহ গঠনে ক্যালসিয়ামের গুরুত্ব অপরিসীম। এই প্রয়োজনীয় উপাদানটি হাড় ও দাঁত মজবুত করতে এবং জরুরি মাংসপেশি গঠন, হৃদ্‌যন্ত্রের মাংসপেশির সংকোচন-প্রসারণ, স্নায়ুতন্ত্রের বিভিন্ন সংকেত আদান-প্রদান ছাড়াও বিভিন্ন হরমোন নিঃসরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। 

একজন স্বাভাবিক প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের দৈনিক ক্যালসিয়ামের চাহিদা ৮০০ থেকে ১ হাজার মিলিগ্রাম। আবার পোস্টমেনোপোজাল নারীদের ক্ষেত্রে ও গর্ভবতী নারীর ক্ষেত্রে তা বেড়ে দাঁড়ায় ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ মিলিগ্রাম। সাধারণত বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরে ক্যালসিয়ামের চাহিদা বাড়ে। বিশেষ করে নারীদের রজোনিবৃত্তির পর হাড়ে সঞ্চিত ক্যালসিয়াম কমে গিয়ে হাড় পাতলা ও ভঙ্গুর হয়। 

ক্যালসিয়াম গর্ভবতী মায়েদের উচ্চ রক্তচাপ এবং প্রিক্ল্যাম্পসিয়া, দুটি সাধারণ গর্ভাবস্থার জটিলতার ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে। ক্যালসিয়ামের ঘাটতি গর্ভবতী মা এবং শিশু—উভয়কেই প্রভাবিত করতে পারে। যার ফলে অস্টিওপেনিয়া, কাঁপুনি, পেশি ক্র্যাম্পিং, টিটেনাস, ভ্রূণের বৃদ্ধিতে বিলম্ব, কম জন্মগত ওজন ও ভ্রূণের মধ্যে খনিজের কম পরিমাণের কারণ হতে পারে। 

সাধারণভাবে ক্যালসিয়াম ঘাটতির কারণে নানা সমস্যা হয়। সেগুলোর মধ্যে রয়েছে স্নায়বিক সমস্যা, পেশি সংকোচন, হাড়ের ঘনত্ব কমে যাওয়া, দৃঢ়তাহীন, রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কমে যাওয়া, অস্বাভাবিক হৃৎস্পন্দন ইত্যাদি। যদি লক্ষণগুলো প্রকাশ পায়, তবে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করা উচিত। ক্যালসিয়ামের অভাব মোকাবিলায় নিয়মিত ক্যালসিয়ামযুক্ত খাবার অথবা পুষ্টিকর খাবার বা চিকিৎসকের পরামর্শে ক্যালসিয়াম সাপ্লিমেন্ট খাওয়া জরুরি। 

বাজারে বিভিন্ন ধরনের ক্যালসিয়াম সাপ্লিমেন্ট পাওয়া যায়। ক্যালসিয়ামপ্রাপ্তির যাত্রা শুরু হয় রক বা চুনাপাথর থেকে পাওয়া ক্যালসিয়ামের মাধ্যমে। চিকিৎসাবিজ্ঞানের শুরুর দিকে এটিই ছিল ক্যালসিয়ামপ্রাপ্তির মূল উৎস। রক বা চুনাপাথর থেকে প্রাপ্ত ক্যালসিয়ামের শোষণমাত্রা ৩১ শতাংশ, অর্থাৎ এই উৎস থেকে প্রাপ্ত ৫০০ মিলিগ্রাম ট্যাবলেট থেকে ক্যালসিয়াম পাওয়া যায় মাত্র ১৫৫ মিলিগ্রাম। এ ছাড়া এই ক্যালসিয়াম হজমে সমস্যা হওয়ার কারণে পাকস্থলীতে অস্বস্তি এবং কোষ্ঠকাঠিন্য হয়।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর কাজ কী?

সাধারণ দৃষ্টি তে দেখতে গেলে ক্যালসিয়াম এক ধরনের একটি মৌল। তবে একটি কিন্তু একটি খনিজ পদার্থ ও। ক্যালসিয়াম নামক এই খনিজ পদার্থ টি দাঁত, হাড় শক্ত করতে এবং ক্ষয় রোধ করতে সাহায্য করে থাকে।

যাদের হাড় বা দাঁত ক্ষয় হয়ে থাকে তাদের মূলত শরীরে ক্যালসিয়াম এর অভাব থাকায় এমন টা হয়। এছাড়াও স্নায়ু, হৃদস্পন্দন ও মাংশপেশিতেও এর ক্যালসিয়াম এর ভালোই ভূমিকা থাকে।

সাধারণত অনেকেই মনে করেন যে ভিটামিন ডি এবং ক্যালসিয়াম দুইটি আলাদা জিনিস। আসলে ব্যাপার টা তা নয়। ভিটামিন ডি এর অভাব এবং ক্যালসিয়াম এর অভাব দুটি সেইম কথাই।

হরমোন জনিত কিছু তারতম্যর জন্য প্রবীণদের এই ক্যালসিয়াম এর অভাব হয়ে থাকে। তবে কৈশর কাল থেকেই পর্যাপ্ত পরিমাণে যদি ক্যালসিয়াম জাতীয় বা ভিটামিন ডি জাতীয় খাবার খাওয়া যায় তবে প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার পরে সাধারণত শরীরে ক্যালসিয়াম এর অভাব হয় না।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খাওয়ার নিয়ম

সাধারণত কোনো ঔষধ বা ট্যাবলেট খাবার খাওয়ার পরে খাওয়া হয়। বিশেষ করে সকালে এবং রাত্রে বেশি ঔষধ খেয়ে থাকেন সকলে। কেননা সেটা ডাক্তারের দেওয়া পরামর্শ। তবে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট টি সকাল ও না আবার রাতেও নয় বরং দুপুরে খাওয়া উত্তম। প্রয়োজনে এ বিষয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর নাম

আমরা অনেক্ষণ ধরে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট নিয়ে কিছু জরুরী বিষয় জানলাম। কিন্তু এখনো হয়তো আমরা অনেকেই ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর নাম গুলো ঠিক মতো জানি না। তো চলুন নিচে আমরা কয়েকটি ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর নাম ও মূল্য সম্পর্কে জেনে নেই।

১০টি ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর নাম নিচে উল্লেখ করা হলো:

১.Calbo-D Tablet

২.Calbo 500 Tablet

৩.Calboral-D Tablet

৪.Calboral-DX Tablet

৫.Calbo Jr Tablet

৬.G-Calbo Tablet

৭.Calboplex Tablet

৮.Calbo-D Vita Tablet

৯.Calbo-C Tablet

১০.Caldical-D

Calbo-D Tablet

কার্যকারিতা:

শক্তিশালী হাড় ও দাঁতের পাশাপাশি হৃদপিণ্ড, পেশি এবং স্নায়ুর সুস্থ স্বাস্থ্য বজায় রাখতে ভূমিকা পালন করে। এটি হাড়ের বিকাশ এবং হাড়ের ধ্রুবক পুনরায় সৃষ্টি হওয়ার জন্য নির্দেশিত হয় এবং সেই সাথে অস্টিওপোরেসিস  প্রতিরোধ ও চিকিৎসার জন্য কাজ করে।

খাওয়ার নিয়ম:

একটি ট্যাবলেট প্রতিদিন দুইবার করে খাওয়া, যেখানে সকালে একবার এবং বিকেলে একবার বিদ্যমান রয়েছে।

মূল্য:

২০০ টাকা দামে মোট ৩০ পিস

Calbo 500 Tablet

কার্যকারিতা:

যারা তাদের খাদ্য থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম পায় না এবং ক্যালসিয়ামের মাত্রা কম হয় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় সেক্ষেত্রে চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা হয়।

খাওয়ার নিয়ম:

দৈনিক সর্বনিম্ন একটি এবং সর্বোচ্চ তিনটি ট্যাবলেট খেতে হবে তবে খাওয়ার পর।

মূল্য:

এমআরপি অনুসারে মূল্য ৫ টাকা প্রতি পিচ।

Calboral-D Tablet

কার্যকারিতা:

শক্তিশালী হাড় ও দাঁতের পাশাপাশি হৃদপিণ্ড, পেশি এবং স্নায়ুর সুস্থ স্বাস্থ্য বজায় রাখতে ভূমিকা পালন করে। এটি হাড়ের বিকাশ এবং হাড়ের ধ্রুবক পুনরায় সৃষ্টি হওয়ার জন্য নির্দেশিত হয় এবং সেই সাথে অস্টিওপোরেসিস  প্রতিরোধ ও চিকিৎসার জন্য কাজ করে।

খাওয়ার নিয়ম:

একটি ট্যাবলেট প্রতিদিন দুইবার করে খাওয়া, যেখানে সকালে একবার এবং বিকেলে একবার বিদ্যমান রয়েছে।

মূল্য:

মূল্য ৩৩০ টাকা মোট ৩০ টি ট্যাবলেট এর জন্য।

Calboral-DX Tablet

কার্যকারিতা:

শক্তিশালী হাড় ও দাঁতের পাশাপাশি হৃদপিণ্ড, পেশি এবং স্নায়ুর সুস্থ স্বাস্থ্য বজায় রাখতে ভূমিকা পালন করে। এটি হাড়ের বিকাশ এবং হাড়ের ধ্রুবক পুনরায় সৃষ্টি হওয়ার জন্য নির্দেশিত হয় এবং সেই সাথে অস্টিওপোরেসিস  প্রতিরোধ ও চিকিৎসার জন্য কাজ করে।

খাওয়ার নিয়ম:

দৈনিক সর্বনিম্ন একটি এবং সর্বোচ্চ দুইটি ট্যাবলেট খেতে হবে তবে খাওয়ার পর।

মূল্য:

মূল্য ৪৫০ টাকা মোট ৩০টি ট্যাবলেট এর জন্য।

Calbo Jr Tablet

কার্যকারিতা:

শিশু এবং কিশোর কিশোরীদের দ্রুত বৃদ্ধির সময় প্রয়োজনে পুষ্টিক খাদ্য দ্বারা উৎপন্ন না হলে চিকিৎসা হিসেবে এই ট্যাবলেট কাজ করে থাকে।

খাওয়ার নিয়ম:

দৈনিক একটি ট্যাবলেট, তবে বয়সন্ধিকালে দুইটি ট্যাবলেট পর্যন্ত খাওয়ার নিয়ম রয়েছে তবে খাওয়ার পর।

মূল্য:

প্রতিটি ট্যাবলেটের দাম শুধুমাত্র তিন টাকা।

G-Calbo Tablet

কার্যকারিতা:

অস্টিওপোরেসিস, রিকেটস, অস্টিওম্যালেসিয়া, ইত্যাদি চিকিৎসা ব্যবহৃত হয়।

গর্ভাবস্থায় গর্ভবতী নারী ও শিশুর পুষ্টি পূরণে ব্যবহৃত হয়।

খিচুনি রোগ ঔষধ গ্রহণের ক্ষেত্রে চিকিৎসা রূপে ব্যবহৃত হয়।

খাওয়ার নিয়ম:

একটি ট্যাবলেট দৈনিক দুইবার এবং এক্ষেত্রে সকালে এবং বিকেলে খাওয়ার পর খেতে পারেন।

Caldical-D

কার্যকারিতা:

শরীরের অনেক স্বাভাবিক কাজের জন্য প্রয়োজনীয়, তবে হাড়ের গঠন ও মেইনটেনেন্সের জন্য এটি বিশেষভাবে দরকারি।

ভিটমিন ডি৩ ক্যালসিয়ামের পরিশোষণ ও পূণঃপরিশোষণে সহায়তা করে।

এছাড়াও ভিটামিন ডি৩ হাড় গঠনে উদ্দীপনা তৈরী করে।

ক্লিনিক্যাল স্টাডিতে দেখা যায় যে, ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি৩ হাড়ের বৃদ্ধিতে এবং অস্টিওপরোসিস ও হাড় ভেঙ্গে যাওয়া প্রতিরোধে যুগপৎভাবে সহায়তা করে।

খাওয়ার নিয়ম:

 দৈনিক ২ টি ট্যাবলেট বা ১ টি ট্যাবলেট, দিনে ২ বার। ভালভাবে পরিশোষিত হওয়ার জন্য এটি খাবারের সাথে বা খাবারের পরপর গ্রহণ করা উচিত।

মূল্য: 

একটি বক্স এ পাওয়া যায়, যেটাতে ৫০ পিচ ট্যাবলেট থাকে। এখানে প্রতিটা ট্যাবলেট এর মূল্য ৭ টাকা ধরা হয়ে থাকে। অর্থাৎ সম্পূর্ণ বক্স এর মূল্য হয় ৫০×৭ = ৩৫০ টাকা।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খাওয়ার কারণে কিডনিতে পাথর, মাংশ পেশির দুর্বলতা, হার্টরেট এ পরিবর্তন, এলার্জির লক্ষণ দেখা যায়।  তাই আমাদের সবার উচিত এ ব্যাপারে সতর্ক হওয়া এবং এ ট্যাবলেট অনায়াসে না খেয়ে ডাক্তার এর পরামর্শ নেওয়া উচিত।

দাঁতের ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট।

আমরা সকলেই জানি যে দাঁতের উপর ক্যালসিয়াম অনেক কার্যকারী ভূমিকা রাখে। আমাদের শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দেখা দিলে আমাদের দাঁত ক্ষয় হতে থাকে, দাঁতের মারি ক্ষয় হতে থাকে এবং দাঁতের হাড় গুলো নরম হতে থাকে।

যা একমাত্র ক্যালসিয়ামই রোধ করতে পারে। আপনি দাঁতের হাড়ের ক্ষয় ঠেকাতে এবং পূনরায় গঠন করার জন্য Calcium A&D এই ট্যাবলেট টি সেবন করতে পারেন। এটি শুধু মাত্র দাঁতের গঠন নয় শরীরের হাড়ের গঠনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

তবে এই ট্যাবলেট টি সেবন করার পূর্বে ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন। কারন এই ট্যাবলেট গুলোর যেমন ভালো দিক রয়েছে তেমন সাইট এফেক্ট ও রয়েছে। তাই যেকোনো ঔষধ সেবনের আগে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করবেন।

কিডনি সুস্থ রাখে যেসব খাবার - Foods that keep the kidneys healthy
কাঁঠালের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা
স্ট্রবেরির পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা
পেয়ারার পুষ্টিগুণ
স্পিরুলিনা-Spirulina Food
ডিমের উপকারিতা ও অপকারিতা
ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পূরণে যেসব খাবার খাবেন-Foods to eat to compensate for calcium deficiency