বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর-Bangabandhu Memorial Museum
Bangabandhu Memorial Museum

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর-Father of the Nation Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman Memorial Museum

রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডি আবাসিক এলাকার ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কের বাসাটিতে ১৯৯৭ সালে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি রক্ষায় গড়ে তোলা হয় বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর। এ বাসায়ই বঙ্গবন্ধু থাকতেন। সেখানে আছে তার ব্যক্তিগত ব্যবহার্য জিনিস আর ছবি। ১৯৭৫ সালে সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছিল এ বাসায়ই। তার চিহ্ন বয়ে বেড়াচ্ছে বাসাটি। এর প্রত্যেকটি ঘরেই দেখা যায় সেই কালো রাতের চিহ্ন। 

বাড়িটিতে রয়েছে বঙ্গবন্ধুর ব্যবহূত নানা জিনিসপত্র। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের বীভৎস ঘটনার সাক্ষী বহন করছে দেয়াল এবং সিঁড়িতে গুলির চিহ্ন। তিনতলা ভবনটিকে বলা হয় বঙ্গবন্ধু ভবন। ১৯৯৭ সালে এই বাড়িটি জাদুঘরে রূপান্তর করা হয়।


যা যা দেখবেন:

জাদুঘর ভবনটিতে ঢুকে এক তলাতেই চোখে পড়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি। একতলায় জাদুঘরটির প্রথম কক্ষে ছবির মাধ্যমে ইতিহাস তুলে ধরা হয়েছে বলা যায়। সেই সময়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানদের সাথে বঙ্গবন্ধুর আলাপচারিতা ও শুভেচ্ছা বিনিময়ের আলোকচিত্র রয়েছে এখানে। এই কক্ষটি ছিল ড্রইং রুম। যেখানে বসে বঙ্গবন্ধু দেশ-বিদেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের সাথে বৈঠক করেছেন। এই কক্ষের পাশের কক্ষটি ছিল শেখ মুজিবুর রহমানের পড়ার ঘর। এখানে বসে তিনি

লেখালেখিও করতেন। এখান থেকেই তিনি ৭১ সালে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র পাঠিয়েছিলেন। সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠার সময় এখনো চোখে পড়বে সেই রাতের তান্ডবলীলার নিদর্শন। এছাড়া এখানে শিল্পীর তুলিতে আঁকা বঙ্গবন্ধুর গুলিবিদ্ধ অবস্থার একটি প্রতিকৃতি রয়েছে।


দোতলায় গিয়ে প্রথমেই যে কক্ষটি পাওয়া যায় সেটি ছিল বঙ্গবন্ধুর বাসকক্ষ। এর পরের প্রথমে কক্ষটি ছিল তাঁর শোবার ঘর, তারপরের কক্ষটি কক্ষটি শেখ রেহানার শোবার ঘর। এ কক্ষগুলোয় এখন প্রদর্শিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধু এবং তাঁর পরিবারবর্গের নানা স্মৃতি চিহ্ন। এটি কেবল একটি পারিবারের স্মৃতি চিহ্ন নয়। এগুলো একটি জাতির ইতিহাসের একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়।

এখানে থাকা বিভিন্ন প্রদর্শন সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে শেখ রাসেলের খেলার জিনিস। যেমন- বল, হিকষ্টিক, ব্যাট, হেলমেট, সুলতানা কামালের সঙ্গে তার ছবি ইত্যাদি। এছাড়া বঙ্গবন্ধু ব্যবহৃত পাইপ, চশমাসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র তো রয়েছেই। আরও নিদর্শন প্রদর্শনীর জন্য আনার কথা রয়েছে।


সময়সূচী:

সপ্তাহে বৃহষ্পতিবার থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত এটি খোলা থাকে। বুধবার এটি বন্ধ থাকে। এছাড়াও সরকারি সকল ছুটির দিনগুলিতেও এই জাদুঘর বন্ধ থাকে। ১ মে, বিজয়া দশমী, শব-ই-বরাত, শব-ই-কদর, ঈদ-উল-ফিতর ও ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে জাদুঘর বন্ধ থাকে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: ভিভিআইপি অতিথিদের আগমন উপলক্ষে নিরাপত্তার স্বার্থে জাদুঘর বন্ধ থাকতে পারে।


টিকেটমূল্য:

এই জাদুঘরটির একটি মাত্র টিকেট কাউন্টার রয়েছে। ভিড় থাকলে লাইন ধরে টিকেট কাটতে হয়। টিকেটের মূল্য ৫ টাকা। ৩ বছরের কম বয়সীদের কোন টিকেটের প্রয়োজন হয় না। আর শুধুমাত্র শুক্রবার ১২ বছরের কম বয়সীরা টিকেট ছাড়া প্রবেশের সুযোগ পায়। 

কিভাবে যাবেন:

ঢাকার গাবতলী, মতিঝিল, ফার্মগেট ও নিউমার্কেট এলাকা হতে ধানমন্ডিগামী যে কোন বাস, সিএনজি, ট্যাক্সি ক্যাব বা রিকশাযোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্মৃতি জাদুঘরে যাওয়া যায়।


অবস্থান ও ঠিকানা:

লেক সার্কাস এর পশ্চিম পাশে এই জাদুঘরটির অবস্থান।

ঠিকানা-

বঙ্গবন্ধু ভবন, বাড়ি# ১০, রোড# ৩২ (পুরাতন), ১১ (নতুন)।

ফোন- ৮৮-০২-৮১১০০৪৬

ফ্যাক্স- ৮৮-০২-৮৩১৩৮৬৬

বরিশালের দর্শনীয় স্থানসমূহ-Places of interest in Barisal
বাংলাদেশের সেরা পর্যটনকেন্দ্র-The best tourist destination in Bangladesh
আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ-Andarkilla Shahi Jame Mosque
হাছন রাজা মিউজিয়াম-Hason Raja Museum
কলকাতার ৩০টি বিখ্যাত জায়গা-Famous place in Kolkata